আগামী বুধবার থেকে আবারও বৃষ্টির আশঙ্কা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পজিটিভ বিডি নিউজ ২৪ ডটকম : টানা তিন দিন ধরে নিচু মেঘে ঢেকে থাকার পর অবশেষে রোদ হাসল। ঢাকাসহ দেশের বেশির ভাগ এলাকার বিষণ্ন আকাশ ঝকঝকে পরিষ্কার হলো।

সঙ্গে সকাল সকাল শীতের হিম হিম বাতাসও বাড়ল। কিন্তু প্রকৃতিতে শীত শুরুর এই সৌন্দর্যে ভাটা পড়ার আশঙ্কাও এরই মধ্যে দানা বাঁধতে শুরু করেছে। বঙ্গোপসাগরে আবারও একটু লঘুচাপ দানা বেঁধেছে। ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে বলা হচ্ছে, এটি আজ রোববারের মধ্যে নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে। এমনকি দ্রুত শক্তি অর্জন করলে এটি ঘূর্ণিঝড়েও রূপ নিতে পারে।

তবে লঘুচাপটি নিম্নচাপ বা ঘূর্ণিঝড় যা–ই হোক না কেন, তাতে বাংলাদেশের খুব বেশি ভয়ের আশঙ্কা নেই। কারণ এটি বাংলাদেশ উপকূল থেকে বেশ দূরে রয়েছে। এর গতিমুখ ভারতের অন্ধ্র উপকূলের দিকে। এর প্রভাবে ভারতের দক্ষিণের এলাকাগুলোতে ভারী বৃষ্টির আশঙ্কা আছে। তবে ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, ওই লঘুচাপের প্রভাবে বাংলাদেশ ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আবারও আকাশ মেঘলা হয়ে উঠতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও বৃষ্টিও হতে পারে।

বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তরের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী লঘুচাপটি আজ রোববারের মধ্যে নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে। এটি বুধবারের মধ্যে গভীর নিম্নচাপে বা ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়ে ভারতের অন্ধ্র উপকূলের দিকে আঘাত করতে পারে। ফলে এর বর্ধিতাংশের প্রভাবে বাংলাদেশে বুধবার থেকে আবারও বৃষ্টি শুরু হতে পারে। ওই বৃষ্টি দু–এক দিন চলতে পারে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ আবদুল মান্নান প্রথম আলোকে বলেন, বঙ্গোপসাগর স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি উত্তপ্ত হয়ে আছে। তাই সেখানে ঘন ঘন লঘুচাপ তৈরি হচ্ছে। নতুন তৈরি হওয়া লঘুচাপটি দ্রুত শক্তি অর্জন করছে। এটি নিম্নচাপে পরিণত হয়ে আগামী বুধবারের মধ্যে ভারতের দক্ষিণ উপকূলে ভূমিতে উঠতে পারে। এর প্রভাবে বাংলাদেশে বুধবার থেকে বৃষ্টি শুরু হতে পারে।

এদিকে নিচু মেঘ সরে যাওয়ায় রাজধানীসহ দেশের বেশির ভাগ এলাকার বায়ুর মান কিছুটা ভালো হয়েছে। তবে গতকাল দুপুর পর্যন্ত তা অস্বাস্থ্যকর অবস্থায় ছিল। সকাল পর্যন্ত রাজধানীর বায়ুর মানের সূচক ছিল ১৭৬, অর্থাৎ অস্বাস্থ্যকর। বিশ্বের বায়ুর মান পর্যবেক্ষণকারী আন্তর্জাতিক সংস্থা এয়ার ভিজ্যুয়াল এই হিসাব দিয়ে বলছে, তিন দিন ধরে বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত বায়ুর শহরের নাম থেকে ঢাকা সরে গেছে। গতকাল সকাল পর্যন্ত ঢাকা ছিল ওই তালিকায় ৬ নম্বরে। আর শীর্ষে ছিল আফগানিস্তানের কাবুল। এরপর ছিল যথাক্রমে কাজাখস্তানের নুর সুলতান শহর, কিরগিজস্তানের বিশকেক, পাকিস্তানের লাহোর শহর ও ভারতের দিল্লি।

এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আগামীকাল দিনের বেশির ভাগ সময় দেশের আকাশ মেঘমুক্ত থাকবে। রোদের দেখাও পাওয়া যাবে। তবে দেশের উপকূলসহ কয়েকটি এলাকায় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও দমকা হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে চলতি নভেম্বর মাসের জন্য দেওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়েছিল, এই মাসে বঙ্গোপসাগরে কমপক্ষে দুটি নিম্নচাপের সৃষ্টি হতে পারে। এর মধ্যে একটি ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হওয়ার আশঙ্কা আছে। আর এই মাসে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টি হতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের হিসাবে, গতকাল দেশের সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে নোয়াখালীর মাইজদীতে ১৩ মিলিমিটার। আর রাজধানীতে এক মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল বরাবরের মতো পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ১৫ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে দেশের অন্যত্র সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৬ থেকে ২১ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে ছিল।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*