আদাতে আগুন, যার দাম হিলিতে ৩০০ টাকা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোসলেম উদ্দিন, বিশেষ প্রতিনিধি : দামের গরমে আদাতে লেগেছে আগুন। হাত পুড়ে যাওয়ার প্রায় উপক্রম দিনাজপুরের হিলি বাজারে কিনতে আসা আদা ক্রেতাদের। দু’দিনের ব্যবধানে আবারও কেজিতে ৪০ টাকা বেড়েছে আদার দাম। প্রকার ভেদে ভারতীয় আদার কেজি ছিলো ২০০ টাকা আজ তা পাইকারী বাজারে ২৪০ টাকা। দেশি আদা ছিলো ২৪০ টাকা আজ তা পাইকারী হচ্ছে ২৮০ টাকা কেজি দরে। ভারতীয় আদা আমদানি বন্ধ থাকায় বেড়েছে আদার দাম এমনটিই বলে দাবি করছে আদা পাইকারী ব্যবসায়ীরা। এদিকে দাম বাড়ায় বাজারে আদা কিনতে এসে ক্রেতাদের নাভিশ্বাস।

আজ শুক্রবার (২৪ এপ্রিল) হিলি বাজার ঘুরে জানা যায়, দুই দিন আগে খুচরা ব্যবসায়ীরা ১৮০ টাকা দরে ভারতীয় আদা পাইকারী ক্রয় করে ২০০ টাকা কেজি খুচরা দরে বিক্রি করেছে। দেশি আদা ২২০ টাকা কিনে ২৪০ টাকা দামে বাজারে খুচরা বিক্রি করেছে।

হিলি বাজারের খুচরা ব্যবসায়ী সোহেল রানা বলেন, লাগামহীন ঘোড়ার মতো আদার দাম বাড়তেই আছে। দুই-তিন দিনের ব্যবধানে আদার দাম বৃদ্ধি পেয়েছে কেজিতে ৪০ টাকা। ২০০ টাকার ভারতীয় আদা আজ বেচছি ২৬০ টাকা, আবার ২৬০ টাকার দেশি আদা বিক্রি করছি আজ ৩০০ টাকা কেজি দরে। প্রতিনিয়ত দাম বৃদ্ধির কারনে ক্রেতারা বাজারে এসে ভবঘরার মতো ঘুরছে।

আদা কিনতে আসা একজন ক্রেতা বলেন, কাঁচাবাজারে সব ধরনের জিনিসপাতির দাম লাগালের মধ্যেই আছে। কিন্তু আদার দাম আকাশ বরাবর। এভাবে যদি আদার দাম দিনে দিনে বেড়েই চলে তাহলে তো বিপদে পড়তে হবে।

একজন দিনমজুর বলেন, করোনার কারনে বাড়ি থেকে বের হতে পারছি না। সবকিছু উপেক্ষা করে কিছু টাকা উপার্জন করছি। সব্জি বাজারে সব্জির দাম অনেকটাই কম আছে। কিন্তু আদার দাম শুনে তো আমার মাথায় হাত উঠছে।

হিলি বাজারের আদা পাইকারী ব্যবসায়ী ফেরদৌস রহমান আদার দাম বৃদ্ধির কারন জানান, গত ২৬ মার্চ থেকে হিলি স্থলবন্দরে ভারতীয় পণ্য আমদানি-রপ্তানি বন্ধ রয়েছে। আর ভারতীয় আদা আমদানি বন্ধ থাকার কারনে বেড়েছে আদার দাম। এদিকে দেশে লকডাউনের জন্য দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে দেশি আদার আমদানিও কম হচ্ছে, মুলত এসব কারনে প্রতিনিয়ত বাড়ছে আদার দাম।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*