আফগানদের আশ্রয় দেওয়ার মার্কিন প্রস্তাব নাকচ করেছে বাংলাদেশ : মোমেন

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পজিটিভ বিডি নিউজ ২৪ ডট কম (ঢাকা): পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, রোহিঙ্গাদের পাশাপাশি কিছু মার্কিন মিত্র আফগান নাগরিককে বাংলাদেশে অস্থায়ী আশ্রয় দেওয়ার যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তাব ঢাকা নাকচ করেছে।
আজ ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে এক অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার পর তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বাংলাদেশকে তার বন্ধু হিসেবে বিবেচনা করে প্রস্তাবটি রাখার জন্য আমরা যুক্তরাষ্ট্রকে ধন্যবাদ জানাই… কিন্তু আমরা তাদের বলেছিলাম আমরা অন্য কাউকে আশ্রয় দেওয়ার মতো পরিস্থিতিতে নেই।
প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ঢাকা ওয়াশিংটন ডিসিকে বুঝিয়েছে মিয়ানমার থেকে জোর পূর্বক বাস্তুচ্যুত ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশ ইতোমধ্যে অতিরিক্ত চাপে পড়েছে।
মোমেন বলেন, মার্কিন প্রশাসন গত ১৪ আগস্ট ওয়াশিংটন ডিসিতে বাংলাদেশ মিশনের মাধ্যমে আফগান নাগরিকদের আশ্রয়প্রার্থীর সংখ্যা বা বাংলাদেশে তাদের থাকার সময়সীমা উল্লেখ না করে এই প্রস্তাবটি দেওয়া হয়। তিনি বলেন, তারা (যুক্তরাষ্ট্র) শুধুমাত্র আফগান নাগরিকদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছে, যারা অন্য কোন দেশের নাগরিক নয়।
মোমেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তান থেকে লোক দেওয়ার জন্য যেসব দেশে অনুরোধ করেছিল, ঢাকা তাদের নামও জানতে চেয়েছিল কিন্তু এর কোনো উত্তর পায়নি।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাইডেন প্রশাসন বাংলাদেশের মিত্র হিসেবে আস্থা রাখার কারণে ঢাকা মার্কিন প্রস্তাবকে ইতিবাচক ভাবে দেখেছে। কিন্তু আমাদের কোন নতুন মানুষকে আশ্রয় দেওয়ার ক্ষমতা নেই… যদি আমাদের সামর্থ্য থাকত, তাহলে আমরা নির্দ্বিধায় এটি বিবেচনা করতাম।
আফগানিস্তানে উন্নয়ন বিষয়ে বাংলাদেশের অবস্থান সম্পর্কে মন্তব্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ঢাকা আফগানিস্তানের নতুন সরকারকে স্বাগত জানাবে, যদি এর জনগণ তাকে সমর্থন করে। তিনি বলেন, আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি। যখন জনগণের আকাক্সক্ষার মত সরকার গঠিত হয় … আমরা এটা সমর্থন করি।  জনগণ সমর্থিত কোনো সরকার বাংলাদেশের কাছ থেকে সমর্থন চাইলে বাংলাদেশ সহায়তা দেবে।
আফগানিস্তান সার্কের একটি সদস্য রাষ্ট্র উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ আফগানিস্তানের উন্নয়ন চায় এবং কাবুল চাইলে ঢাকা এ বিষয়ে সহায়তা দিতে প্রস্তুত।
সোমবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী এক বিবৃতিতে বলেন, বাংলাদেশ আফগানিস্তানের দ্রুত পরিবর্তিত পরিস্থিতি মনোযোগ সহকারে পর্যবেক্ষণ করছে, যা এই অঞ্চলে এবং তার বাইরের উপর প্রভাব ফেলতে পারে বলে তারা মনে করে। এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ বিশ্বাস করে, জনগণের পছন্দসই গণতান্ত্রিক ও বহুত্ববাদী আফগানিস্তানই সে দেশের স্থিতিশীলতা ও উন্নয়নের একমাত্র শর্ত।
বাংলাদেশ আফগানিস্তানের সকল অংশিজনদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছে যাতে দেশটিতে বিদেশী নাগরিকসহ সবার সুরক্ষা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে শান্তি ও স্থিতি বজায় থাকে।
বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, বাংলাদেশ দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে আফগানিস্তানের জনগণের উপর নির্ভর করছে তাদের দেশ পুনর্গঠন এবং ভবিষ্যতের চলার পথ নির্ধারণ করা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*