কবি গুল আফরোজ আহমেদ- এর কবিতা “ শুধু তোমাকেই চাই “

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শুধু তোমাকেই চাই

কবি : গুল আফরোজ আহমেদ

তোমার জীবনে আমি অমাবস্যা

দুকূল ভাঙা অবাধ্য নদী,

অসচ্ছ প্রেমে তোমার দুচোখ ঢাকা

অবিরত তাইতো দেখো মন্দ পৃথিবী।

আর আমি শুধু করি তুমি তুমি,

মেঘে ঢাকা পড়ে যায় ঝলমলে সূর্যটাও

আকাশের ব্যথাগুলো বৃষ্টি হয়ে ঝরে পড়ে

নিদ্রাবিহীন এই আমি নিরব আছি

পৃথিবীর কোলাহলে,

ভূল ভাঙার সবটুকু দায় নিয়ে নিরবধি ।

কথা বলতে বলতে , চলতে চলতে কোন একদিন

তোমার চোখ দেখলাম প্রেমে রঙিন,

তোমার দুঠোঁটে স্বপ্নেরা খেলছে

অথচ ——–

বাস্তবতা বলছে তো অন্য কথা

আমিই হতে পারতাম পূর্নিমা চাঁদ

একটু সাহসী হয়ে দু’ হাত ধরতে যদি ।

পৃথিবীতে কতো অলৌকিক ঘটনায় তো ঘটে

তেমনি তোমার সাথে দেখা হতেও তো পারে

কোনো স্টেশনে বা মার্কেটে ।

ভাবলে এতো বিষ্ময় লাগে

স্মৃতি গুলো তেমনই আছে

জীবনে কতো কিছু এলো গেলো

আলো আঁধার ঝড় বৃষ্টি

তোমাকে কেড়ে নিতে পারলোনা কেউ।

বসন্তে কৃষ্ণচূড়া আর শরতে শিউলি

এখনো তেমনি ঝরে আমার আঙিনায়।

বর্ষায় কদমে বসছে অলি,

যায় হোকনা তুমি অন্যের দখলে একথা সত্য,

তবুও সৃষ্টি হয়না ঘৃনা কেন মনে ভেবে পাইনা

এখনো জাগ্রত প্রেম শুধু তোমাকেই চাই।

বান্ধব হীন একাকী জীবনে ক্লান্তির আঘাতের চাপ

ঘুণপোকা সারারাত কাটে স্বপ্নের বাড়ি ঘর,

তুমি কেন হলেনা পাথেয়, কুয়াশায় ভিজে ভিজে

তোমায় দেখাতাম হৃদয়ের পিপাসা।

শুনেছো কি কখনো নিঃশব্দ কান্না?

চোখ দুটো খুলে রাখে সাগরের নৌকায়,

কি হতো একদিন হলে মাংস ভূক চিল পাখি ?

মানবের বানানো জটিল নিয়ম ভেঙে

জলীয় বাষ্প হয়ে উড়ে যেতাম দুজনেই

বৃষ্টিহীন মেঘেদের বুকে।

গন্ধমের স্বাদ নিলে কি এমন হতো

বাবা আদমের মতো একদিন ?

জমিনে ধরা খেলে পালাতাম

চতুর্থ আসমানের দরজায়,

রমনীর দেহে লুকিয়ে থাকলে তুমি

অনভিজ্ঞতার অজুহাত দেখিয়ে কেঁদে কেটে

ফেরেশতাদের মনে ঠিকই মায়া জাগিয়ে

ফেলতাম আমি কলেমা শুনিয়ে ।

জবানের দাম থাকলে পুলসেরাত পার হওয়া

তেমন কিছু নয়,সত্যের জয়তো সর্বত্রই,

বেশি কিছু কি চাওয়া ছিলো ?

শুধু মাত্র তো তোমাকেই চেয়েছি,

আর তুমি ?

দুঃস্বপ্নের ক্ষতে হৃদয়কে অনাবৃত, অসুস্থ করে

ভেসে গেলে কোন ঝড়ের তোড়ে

নিঃসঙ্গতা বিরান বুকে পাঁজরের হাড়কে

কুঁচি কুঁচি করে, বেদনার নীল রঙ কেনো

আমার একার হবে ?

শরীরের ভেতরে অন্ধকার, বুকের ভেতরে অন্ধকার

নিয়ে, তোমার ভালবাসার সাস্থ্যকে

আর কতোটা সুস্থতা দেবো ?

মানব —শরীর খুলে নেয় মানবিকতার দায়ে

প্রেমের চাবি প্রেমের দাবি

প্রেমের মূল্য কিকরে চুকাবো একা একা আমি ?

বলে দাওনা ——

নিরুত্তর আরো যন্ত্রনা বাড়ায়, বিদ্রোহী করে তোলে,

পারবোনা আগলাতে তোমার প্রেমের সিন্দুক,

জানোনা দায়িত্বহীনতা বর্বরতার বড়ো ভাই

সেই তবে ভালো ছিলো প্রানে মেরে দিতে,

কোনো চৌকিদার তোমায় ধরতে পারতোনা

পৃথিবী শুদ্ধ লোক জানে গোরস্থানে

আমার কবরের জমি কেনা আছে ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*