ঘোড়াঘাটে লাভের আশায় শামীমের পেঁপে চাষ

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোসলেম উদ্দিন, বিশেষ প্রতিনিধি : নিজেকে স্বাবলম্বী করতে দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে লিচু বাগানে পেঁপের চাষ শুরু করেছে শামীউল ইসলাম শামীম। আর এক সপ্তাহ পর প্রায় লাখ টাকার পেঁপে বেচবে এই পেঁপেচাষী।

ঘোড়াঘাটের উসমানপুর হিলি মোড়ে সাড়ে ৫ বিঘা জমিতে কেবল গড়ে উঠেছে লিচুর বাগান। আর তারি মাঝে বাড়তি লাভের আশায় শুরু করেছে পেঁপের চাষ। প্রতি বছর লিচুর বাগানে যে খরচ হবে তা উপার্জন করতে ঐজমিতেই চাষ করেছে পেঁপে। বাগানে প্রতিটি লিচু গাছ ছোট। তার মাঝে মাঝে পেঁপে গাছ লাগানো হয়েছে। প্রতিটি পেঁপে গাছে আশানুরুপ পেঁপে ধরেছে।
পেঁপে গাছে বাড়তি তেমন কোন খরচ হয় না। প্রথমে জমি তৈরি করতে গবর, টিএসপি সার মাটিতে মিশানো হয়েছে। গাছ লাগানোর ৯০ থেকে ১০০ দিনের মধ্যে পেঁপে বাজার জাত করতে পারবে পেঁপেচাষী।

পেঁপেচাষী শামীম বলেন, আমার সাড়ে ৫ বিঘা এই লিচু বাগান। লিচু বাগান নতুন করেছি। কিন্তু বাগানটি উপযুক্ত করতে প্রতি বছর প্রায় ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা খরচ হবে। যেহেতু লিচু গাছগুলো ছোট আছে তাই এরি ফাঁকে ফাঁকে ৬০০টি পেঁপের গাছ লাগিয়েছি। তিন মাস হলো পেঁপের গাছ লাগানো। প্রতিটি গাছে পেঁপের ভাল ফলন হয়েছে। এযাবৎ পেঁপের খরচ বাবদ প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। আশা করছি আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে গাছ থেকে পেঁপে পাড়া শুরু করবো। বাজারে পেঁপের দাম শুনেছি। ১৮ থেকে ২০ টাকা দরে পেঁপে বিক্রি করতে পারবো। গাছে যত পেঁপে ধরেছে তাতে করে প্রথম চালানে প্রায় লাখখানেক টাকা পাবো।
তিনি আরও বলেন, আমি মুলত পেঁপে চাষ করেছি আমার এই লিচু বাগানের খরচ তোলার জন্য। বাগানের সাথেই আমার বাড়ি। আমি নিজেই বাগানের কাজ করে থাকি। অনেক আশা এবং নিজেকে স্বাবলম্বী করার উদ্দেশে আমার এই লিচু বাগানে পেঁপে চাষ করা। আমি প্রতিনিয়ত উপজেলা কৃষি অফিসের সাথে যোগাযোগ করি এবং তাদের দেওয়া পরামর্শ অনুযায়ী একি স্থানে দু’ফসলী বাগানের পরিচার্য করি।

এবিষয়ে ঘোড়াঘাট উপজেলা কৃষি অফিসার এখলাছ আহমেদ জানান, উপজেলায় মোট ১০ হেক্টর জমিতে পেঁপের চাষ হয়েছে। উসমানপুরের হিলি মোড়ে নিকট সামী উল ইসলাম শামীমের একটি সাড়ে ৫ বিঘা লিচু বাগানের মাঝে পেঁপের চাষ হয়েছে। পেঁপের ভাল ফলন হয়েছে। আমরা প্রতিনিয়ত তার পেঁপের বাগান পরিদর্শন করছি এবং সুপরামর্শ দিয়ে আসছি।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*