চুরি হওয়া ব্যাগটি ছিলো নুর-আলমের শেষ সম্বল

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোসলেম উদ্দিন্,হিলি (দিনাজপুর): চুরি হওয়া ব্যাগটি ছিলো জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার বালিঘাটা ইউনিয়নের শীতামাতাখুর(পাটাবুকা) গ্রামের মৃত মোজাফ্ফরের ছেলে দুরারোগ্য ব্যধিতে আক্রান্ত নুর-আলমের(২৫)এর শেষ সম্বল।

 নুর-আলম বলেন,মায়ের অসুস্থতার খবর পেয়ে বুধবার(১৭ জুলাই) ঢাকা-পঞ্চগড়গামী একতা এক্সপ্রেস ট্রেনে করে জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবিতে আসার পথে নাটোরে তার শেষ সম্বল একটি ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে যায় যাত্রীবেশী চোর।নুর-আলম চোরকে ধরার বহু চেষ্টা করেছেন।পাশের লোকজনকে চিৎকার করে জানিয়েছে।কিন্তু ট্রেনে ভির থাকায় কেউ এগিয়ে আসেনি।ট্রেনে কর্তব্যরত লোকজনকে জানিয়েও কোন ফল পাননি তিনিৎ।

 তিনি আরও জানান,অসুস্থ শরীর নিয়ে চোরকে ট্রেনে তন্নতন্ন করে খুঁজেছেন।এসি কামরায় ঢুকতে না দেওয়ায় সেখানে খোঁজা সম্ভব হয়নি।ওই ব্যাগটিতেই তার শেষ সম্বল ছিল।ব্যাগের ভিতর প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ড,জাতীয় পরিচয়পত্র,সাত হাজার টাকা ও ডাক্তারের ব্যবস্থা পত্র ছিল।এছাড়া মা আলেয়া বেগমের বিধবা ভাতার কার্ড ও জাতীয় পরিচয় পত্রটিও ছিল।

একদিকে তার মা মানষিক ভারসাম্যহীন অন্যদিকে ভুমিহীন হওয়ার কার্ড রাখার কোন জায়গা ছিলো না।ফলে কার্ডগুলো তিনি ব্যাগে করেই বহন করতেন।

 নুর-আলম ঢাকার জিরানি বাজার এলাকায় এক এতিম খানায় হেফজ বিভাগে লিখা-পড়া করতেন।১০ বছর বয়সে দুরারোগ্য ব্যধিতে আক্রন্ত হন সে।এখন অসুখ বেড়ে যাওয়ায় সপ্তাহে একবার ডায়াইসিসি করতে হয়।প্রতি সপ্তাহে ২ ব্যাগ ও+ রক্ত দিতে হয়।এতে খরচ হয় ২৬০০ টাকা।চেয়ে চিন্তে খেয়ে না খেয়ে টাকা যোগাড় করে ডায়ালাইসিস করতে হয়।শেষ সম্বল হারিয়ে কেঁদে কেঁদে থ্যালাসামিয়া রোগে আক্রান্ত নুরআলমের শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখা দিচ্ছে।

 ব্যাগ থেকে টাকা নিয়ে চোরেরা হয়তো উপকার ভোগী কার্ড,জাতীয় পরিচয় পত্র ও ডাক্তারের ব্যবস্থা পত্রগুলো ফেলে দিবে। যদি কোন সুহৃদয় ব্যক্তি কার্ড গুলি পেয়ে থাকেন ফেরত দেওয়ার চেষ্টা করবেন।এবং এই অসহায় মানুষটিকে আর্থিক কিংবা রক্ত দিয়ে সাহায্য করতে চান তবে তার দাদার মুঠোফোনে (০১৯৪৩৯৪২৩৩৯ বিকাশ)/ নুর আলমের মুঠোফোন (০১৯৮৯৩৯৭৩২১) নাম্বারে যোগাযোগের জন্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ করা হইল।

 

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*