দিনাজপুরের ডেইরি ও পোল্ট্রি খামারীদের আর্থিক প্রণোদনা দেয়া শুরু

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্টাফ রিপোর্টার : জেলার ১৩টি উপজেলার প্রায় ১৩ হাজার খামারী সরকারের আর্থিক সুবিধা পাওয়া শুরু করেছেন। করোনাকালীন ক্ষতিপুষিয়ে নেয়ার জন্য সরকারের দেয়া প্রণোদনার অর্থ পেয়ে ডেইরি ও পোল্ট্রি খামারের মালিকেরা সন্তোষ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে।
দিনাজপুর জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. শাহিনুর আলম ২৪ ফেব্রুয়ারি বুধবার তার কার্যালয়ে জানান, মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের নীতিমালা অনুযায়ী জেলার ১৩টি উপজেলার প্রায় ১৩ হাজার ডেইরি ও পোল্ট্রি খামারের মালিকদের মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশের মাধ্যমে গতকাল মঙ্গলবার থেকে প্রণোদনার অর্থ প্রদানের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। করোনাকালীন দুঃসময়ে ডেইরি ও পোল্ট্রি খামারের মালিকরা নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। তাদের ক্ষতির কথা মানবিক ভাবে বিবেচনা করে সরকার আর্থিক প্রণোদনার ব্যবস্থা করেন। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী খামারীদের প্রণোদনার অর্থ মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশের মাধ্যমে প্রদানের কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। প্রণোদনার অর্থ ছাড় করনের জন্য যে অর্থের প্রয়োজন সেটাও সরকার বিকাশ কর্তৃপক্ষকে শোধ করছেন। যদি কোন খামারী প্রণোদনার সুবিধা থেকে বঞ্চিত হন তাহলে প্রাণী সম্পদ বিভাগ পর্যায়ক্রমে তাদেরও অর্থ প্রদানের ব্যবস্থা রেখেছেন। যদি কোন খামার মালিকের বিকাশ একাউন্টের নাম্বার ভুল থাকে তাহলে তা সংশোধনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা বলেন, ১৩টি উপজেলায় ১০ হাজার ৬২১ জন ডেইরি খামারী ও ২ হাজার ৯২ জন পোল্ট্রি খামারীকে প্রথম পর্যায়ে প্রণোদনার অর্থ দেয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, ২ থেকে ৫টি গাভীর খামারকে ১০ হাজার টাকা, ৬টি থেকে ৯টি গাভীর খামারীকে ১৫ হাজার টাকা ও ১০ থেকে ২০টি গাভীর খামারীকে ২০ হাজার টাকা প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে। ১০০ থেকে ৫০০ পর্যন্ত সোনালী মুরগির খামারকে সাড়ে ৪ হাজার টাকা, ৫০১ থেকে ১ হাজার পর্যন্ত ৬ হাজার ৭৫০ টাকা ও ১ হাজারের উর্ধে খামারকে ৯ হাজার টাকা, ৫০০ থেকে ১ হাজার ব্রয়লার মুরগির খামারকে ১১ হাজার ২৫০ টাকা, ১০০১ থেকে ২ হাজার পর্যন্ত খামারকে ১৬ হাজার ৮৭৫ টাকা ও ২ হাজারের উর্ধের খামারকে ২২ হাজার ৫০০ টাকা, ২০০ থেকে ৫০০ পর্যন্ত লেয়ার মুরগির খামারকে ১১ হাজার ২৫০ টাকা, ৫০১ থেকে ১ হাজার পর্যন্ত খামারকে ১৬ হাজার ৮৭৫ টাকা ও ১ হাজারের উর্ধের খামারকে ২২ হাজার ৫০০ টাকা এবং হাঁসের ক্ষেত্রে ১০০ থেকে ৩০০ পর্যন্ত খামারকে ৩ হাজার ৩৭৫ টাকা, ৩০১ থেকে ৫০০ পর্যন্ত খামারকে ৬ হাজার ৭৫০ টাকা ও ৫০০ এর উর্ধের খামারকে ১১ হাজার ২৫০ টাকা করে প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে।
প্রণোদনার অর্থ পেয়ে খুশি ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন, ডেইরি খামার মালিক দিনাজপুর উপজেলার শশরা ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের মোজাম্মেল হোসেন, একই ইউনিয়নের রাণীপুর গ্রামের বাবুল হোসেন, সদর উপজেলার ১নং চেহেলগাজী ইউনিয়নের বনকালী গ্রামের ফজলুল করিম এবং উথরাইল ইউনিয়নের মোখলেসুর রহমান। খামারী মালিকরা বলেন, সরকারের এই আর্থিক প্রণোদনা আমাদের জন্য বিরাট উপকার। করোনার সময় আমরা যে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি তা পুরনের এই মহতী পদক্ষেপ খামারীদের মাঝে আশার সঞ্চার করেছে। তারা এজন্য সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। যারা এই উপকার স্বীকার করবেন না তারা মানুষ হিসেবে যোগ্য নন। খামারীগণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে পরবর্তীতে যদি আরো কোন সহায়তা দেয়া সম্ভব সে ব্যাপারে অনুরোধ জানান।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*