ধানের দাম বাড়ায় চালের দাম বেশি,দাবি মিল মালিকদের

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোসলেম উদ্দিন, বিশেষ প্রতিনিধি : সপ্তাহের ব্যবধানে দিনাজপুরের হিলির খুচরা ও পাইকারী বাজারে চালের দাম কেজিতে বেড়েছে ৩ থেকে ৪ টাকা। প্রাণঘাতী করোনার মধ্যে হঠাৎ করে চালের দাম বেড়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন খেটে খাওয়া ও নিম্ন আয়ের মানুষগুলো। ধানের দাম বাড়ায় চালের দাম বাড়িয়েছে মিল মালিকরা। আর এই কারনে বাজারে চালের দাম বাড়ছে বলে দাবি করছেন চাল ব্যবসায়ীরা।

হিলি চাল বাজার ঘুরে দেখা যায়, এক সপ্তাহের ব্যবধানে ৩ থেকে ৪ টাকা কেজিতে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে এসব চাল। বিয়ার-২৯ জাতের চাল বিক্রি হচ্ছে ৪২ টাকা, যা আগে ছিলো ৩৯ টাকা, বিয়ার-২৮ জাতের চাল ৪৪ টাকা, যেটি ছিলো ৪০ থেকে ৪১ টাকা, মিনিকেট চাল ৪৮ টাকা, আগে ছিলো ৪৫ টাকা এবং সম্পা কাটারী রাইস মিলের চাল বিক্রি হচ্ছে ৪৮ টাকা কেজি দরে, যেটি ছিলো ৪৪ থেকে ৪৫ টাকা।

হিলি বাজারের পাইকারী চাল ব্যবসায়ী শ্রী স্বপন কুমারের নিকট দাম বাড়ার কারন জানতে চাইলে তিনি বলেন,বাজারে ধানের দাম উর্দ্ধমূখী হওয়ায় মিল মালিকদের কাছ থেকে বেশি দামে চাল কিনতে হচ্ছে। তাই বেশি দামে চাল কিনে বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে।

এবিষয়ে ঠাকুরগাঁ ভাইভাই অটোরাইস মিল মালিক মনিরুজ্জামান মনির জানান, চাউলের দাম তেমন বাড়েনি। গত ঘূর্ণিঝড় আম্ফান ও কয়েকদিনের ঝড় বৃষ্টিতে বোরো ধানের অনেক ক্ষতি হয়েছে। ভাল ধান পাওয়া যাচ্ছে না।
তিনি আরও জানান, সরকার আমাদের জবাই করে ফেলছে ভাই। ধান কিনছেন সরকার ২৬ টাকা কেজি দরে।আর চাউল কিনছেন ৩৬ টাকা কেজি দর। কিন্তু আমাদের খরচ দিয়ে চাউলের দাম পড়ছে ৪২ টাকা। তাতে করে কিভাবে আমরা ৩৬ টাকা কেজি দরে চউল দিবো। যেহেতু বেশি দামে ধান ক্রয় করছেন তাহলে তো চাউলের দাম বাড়াটায় স্বাভাবিক।

চাল কিনতে আসা ভ্যান চালক রব্বানী বলেন, করোনার কারনে আমাদের এমনিতেই আয় কমেছে গেছে। আগের মত আর কামায়-ধান্দা নেই। যা রোজগার করি তা দিয়ে ছেলে-মেয়ের চাহিদা পুরন করতে হিমশিম খাচ্ছি। কোন রকম কষ্টে করে জীবন-যাপন করছি। আজ বাজারে চাল কিনতে এসে দেখি আগের চেয়ে চালের দাম কেজিতে ৩ থেকে ৪ টাকা বেশি দাম চাচ্ছে দোকানীরা। বাড়িতে মা-বাবাসহ সাত জন খানেয়ালা। প্রতিদিন তিন থেকে চার কেজি চাল লাগে। হঠাৎ করে চালের দাম বাড়ায় বাজারী হিসাব মিলছে না আমার।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*