পরিকল্পিতভাবে গুজব ছড়াচ্ছে বিএনপি-জামায়াত

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পজিটিভ বিডি নিউজ ২৪ ডটকম: সরকারকে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলতে দুর্নীতির দায়ে দণ্ডিত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ইশারায় কিছু ব্যক্তি নিয়মিত গুজব ছড়িয়ে যাচ্ছে আর গুজব ছড়ানোর হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে ইউটিউব, ফেসবুকসহ নানা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম

বিএনপির বিশ্বস্ত সূত্র জানায়, বিএনপি এবং জামায়াতের একটি অংশ দেশকে অস্থিতিশীল করতে পরিকল্পিতভাবে গুজব ছড়াচ্ছে। আর এসবের নেতৃত্বে রয়েছেন তারেক রহমান। তার ইশারায় কাজ করছেন বিদেশে বসে থাকা কিছু ব্যক্তি। গুজব ছড়ানোর জন্য এসব ব্যক্তিদের প্রধান মাধ্যম হচ্ছে ইউটিউব, ফেসবুক। তারা দেশের মানুষকে বিভ্রান্ত করার সব ধরনের চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন। ক্ষমতায় গেলে তাদের ভবিষ্যতে সুযোগসুবিধা দেয়ার আশ্বাস দিয়ে অপপ্রচার চালানোর নেতৃত্ব দিচ্ছেন তারেক রহমান

অভিযোগের সত্যতা খুঁজতে গিয়ে দেখা গেছে, বাংলাদেশ থেকে বিএনপিজামায়াতের আদর্শে বিশ্বাসী কিছু ব্যক্তি এখন বিভিন্ন দেশে অবস্থান করছেন। এরা তারেক রহমানের আশ্রয়প্রশ্রয়েই সেসব দেশ থেকে বিভিন্ন ইউটিউব চ্যানেল এবং ফেসবুকের মাধ্যমে বাংলাদেশ নিয়ে নানারকম মনগড়া কাল্পনিক কথাবার্তা বলছেন

এর পাশাপাশি  জামায়াতের আদর্শে বিশ্বাসী কিছু ব্যক্তি ধর্মীয় উস্কানিমূলক কিছু কনটেন্ট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিচ্ছেন

অবশ্য সরকারকে বেকায়দায় ফেলার জন্য বিরোধীদের ধরনের গুজব সন্ত্রাস বা চক্রান্ত নতুন বিষয় নয়। ২০০৯ সাল থেকে বর্তমান সরকার দায়িত্ব পালন শুরু করার পর থেকে ধরনের গুজব ছড়িয়ে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টির চেষ্টা চলছে

উক্ত সময়ে জামায়াতের শীর্ষ নেতা আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর অনুসারীরা চাঁদে তাকে দেখেছে দাবি করে সারাদেশে নারকীয় তাণ্ডব সৃষ্টির চেষ্টা করেছিল

উল্লেখ্য,  অফলাইনে গুজব ছড়িয়ে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটাতে না পেরে পরবর্তীতে অনলাইনের আশ্রয় নেয় বিএনপি এবং ভুয়া ফেসবুক আইডি থেকে ধর্ম অবমাননা করার অভিযোগ এনে রামুর বৌদ্ধবিহার ভেঙে ফেলার মতো নারকীয় ঘটনা ঘটনা ঘটায় তারা। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সহিংসতাও ছিল তাদের কর্তৃক সৃষ্ট গুজবের ফল

কিছুদিন ধরে ধর্ষণের মতো ঘটনা উস্কে দিয়ে গুজব রটানোর পাঁয়তারা করছে তারা।। বিদেশে বসে ওই সব ব্যক্তিরা ধর্ষণ নিয়েও নানা ভুল তথ্য দিয়ে ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও প্রকাশ করছে। তবে সরকার ধর্ষণের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড করার পর নিয়ে ষড়যন্ত্রের ডালপালা মেলতে পারেনি

দায়িত্বশীল মহল মনে করে, বিদেশ থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যেসব কনটেন্ট প্রচারিত হচ্ছে, সেগুলো  বাংলাদেশে প্রচারণার ব্যাপারে একটি নিয়ম থাকা দরকার। বিশেষ করে কিছু ব্যক্তির ইউটিউব চ্যানেলে বিতর্কিত সাক্ষাৎকার প্রদান এবং উস্কানিমূলক বক্তব্য প্রচারের সুযোগ বন্ধ করা একান্ত প্রয়োজন

গুজবের ব্যাপারে কঠোর অবস্থানের কথা জানিয়েছে সরকার। একই সঙ্গে গুজবে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আহ্বান জানানো হয়। ব্যাপারে সতর্ক থাকার নির্দেশও দেয়া হয়েছে

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*