পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় আয়োজিত ‘বাংলাদেশ বিনির্মাণে বঙ্গবন্ধুর অবদান’ শীর্ষক ভার্চুয়াল সেমিনার অনুষ্ঠিত

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পজিটিভ বিডি নিউজ ২৪ ডটকম (ঢাকা) : পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশের প্রকৃতি, পরিবেশ সংরক্ষণ ও সবুজ বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে বৃক্ষরোপণ অভিযান শুরু করেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর সবুজ বাংলা গড়তে আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। এ লক্ষ্যে সরকার ব্যাপকভাবে গাছের চারা রোপণ করছে। বনভূমির অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করে সেখানেও বনায়ন করা হবে। দেশে ব্যাপকভাবে বৃক্ষরোপণ করে সবুজ বাংলায় পরিণত করা হবে।’

রোববার (৩ জানুয়ারি) দুপুরে মুজিববর্ষ উদযাপনের অংশ হিসেবে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় আয়োজিত ‘বাংলাদেশ বিনির্মাণে বঙ্গবন্ধুর অবদান’ শীর্ষক ভার্চুয়াল সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। রাজধানীর সরকারি বাসভবন থেকে অনলাইনে সেমিনারে যুক্ত হন মন্ত্রী।

পরিবেশ মন্ত্রী বলেন, ‘পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সকলকে বঙ্গবন্ধুর দেখানো নীতি, আদর্শ ও স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করতে হবে। প্রকৃতি-পরিবেশ রক্ষায় যথাসাধ্য চেষ্টা করে যেতে হবে। বনায়ন কার্যক্রম, বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ এবং পরিবেশ দূষণ রোধে ব্যর্থতার জন্য জবাবদিহি করতে হবে। যে কোনো মূল্যেই আমরা দেশের পরিবেশ উন্নত করব।’

প্রধান আলোচকের বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী বীর বিক্রম বলেন, ‌‘জাতির পিতার ৭ মার্চের ভাষণ ছিল মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে দীক্ষামন্ত্র। অস্ত্র কম থাকলেও সবচাইতে বড় অস্ত্র ‘জয় বাংলা’ অস্ত্র।’

তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু মুক্তিযুদ্ধের সময় কারাগারে থেকেও ছিলেন সবার সাথে। বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার মহানায়ক হলেও ছিলেন একজন রক্ত মাংসের মানুষ। দেশের জন্য তিনি ব্যক্তিগত জীবন বিসর্জন দিয়েছেন। তার অবদান কখনোই ভোলা যাবে না। তার স্বপ্ন ও আদর্শ বাস্তবায়নে কাজ করতে হবে।’

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব জিয়াউল হাসান এনডিসির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার। অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) ড. মো. বিল্লাল হোসেনের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (পরিবেশ) মাহমুদ হাসান, অতিরিক্ত সচিব (পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণ) মো. মনিরুজ্জামান, অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) আহমদ শামীম আল রাজী, অতিরিক্ত সচিব (জলবায়ু পরিবর্তন) মিজানুল হক চৌধুরী, বনশিল্প কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান মো. ছালাহ উদ্দীন চৌধুরী, পরিবেশ অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক মো. হুমায়ুন কবির, বন অধিদফতরের প্রধান বন সংরক্ষক মো. আমির হোসাইন চৌধুরী, বাংলাদেশ বন গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক ড. মো. মাসুদুর রহমান, রাবার বোর্ডের চেয়ারম্যান সৈয়দা সারওয়ার জাহান, বাংলাদেশ ন্যাশনাল হারবেরিয়ামের পরিচালক পরিমল সিংহ এবং মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব সঞ্জয় কুমার ভৌমিক আলোচনায় অংশ নেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*