পার্বতীপুরের পল্লীতে প্রধান শিক্ষক হাবিবের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদ ও নিন্দা অব্যাহত ; সঠিক তদন্তের দাবী

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্টাফ রিপোর্টার : করোনা কালিন সময়ে জমি সংক্রান্ত বিরোধে হাসিনুর রহমান গং ও হানিফ আলী গং মধ্যে গন্ডগোল হয়। উভয় গং চাচাতো-মামাতো ভাই, আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ায় ভাইরাস বহন করতে পারে আশংকায় তাদের বাড়ি লকডাউন করার জন্য একই মহল্যার সমাজ সচেতন ব্যাক্তিত্ব্ মৌলভীর ডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ হাবিবুর রহমান সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের নিকট প্রস্তাব করে।

এতে হাসিনুর রহমান পার্বতীপুর মডেল থানায় বাদী হয়ে প্রধান শিক্ষক মোঃ হাবিবুর রহমানসহ ৬ জনের নামে একটি হয়রানি মূলক মামলা দায়ের করে। এই মামলায় প্রধান শিক্ষকের কাল্পনিক ভূয়া নাম ব্যবহার করে তাকে হুকুমের আসামী হিসেবে এজাহারে ৬ নম্বর তালিকায় সম্পৃক্ত করা হয় যার মামলা নং ০৫/১৩৪ তাং ০৫/০৫/২০২০ইং।

এ বিষয়ে ১০ নং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি শাহাবুদ্দিন শাহ্ বলেন, হানিফ আলী বনাম হাসিনুর মামাতো-ফুপাতো ভাই এবং নিকট আত্নীয় তাদের পারিবারিক বিরোধে একজন প্রধান শিক্ষককে হয়রানিমূলক ভাবে জড়ানোয় আমি ও আমার দলের পক্ষ থেকে তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জ্ঞাপন করে সংশ্লিষ্ট তদন্ত কর্মকর্তাকে ঐ শিক্ষকের নাম প্রত্যাহারের আহব্বান জানাচ্ছি, কেননা হাবিবুর রহমান একসময় দ্বায়িত্বশীল সাংবাদিকতায় সোচ্চার ছিলেন।

একই মহল্লার মুদী দোকানদার মোঃ ছলিম উদ্দিন জানান, সংঘর্যের সময় আমার দোকানে আমি সহ অনেকেই প্রত্যক্ষ দর্শী ছিলাম। অথচ পুলিশ তদন্তে এসে আমাদের কোন জবানবন্দী নেয়নি, হাবিবুর মাষ্টার ঐ ঘটনায় বিন্দু মাত্র জড়িত ছিলনা।

মামলার ৩ নং স্বাক্ষী মোঃ আশেক আলী বলেন, আমাকে স্বাক্ষী করা হয়েছে আমি নিজেও জানি না। তবে প্রধান শিক্ষককে জড়ানো অহেতুক হয়রানির চেষ্টা। প্রতিবেশী ও প্রত্যক্ষদর্শী মোঃ লালমিয়া, লালচান, নূর ইসলাম, আফজাল হোসেন, ওমর ফারুক, সাখাওয়াত হোসেন, শাকিল, শাহিনা, শাহিদা, ফুলবাবু, রবিউল, জয়বানু, রাজ্জাক, ওহিদুল, হাসান, কবিরুল জানান- ঘটনা ঘটেছে হানিফ আলীর খলাতে অথচ এজাহারে বলা হয়েছে হাসিনুরের বাড়িতে যা আদৌ সত্য নয়। তা ছাড়া হাবিবুর মাষ্টার ঘটনার সঙ্গে কোনোভাবেই জড়িত ছিলনা।  পুলিশ প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের নিরপেক্ষ তদন্ত দাবী করেন মহল্লাবাসী।

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট প্রধান শিক্ষক হাবিবুর রহমান বলেন, মামলায় আমার নাম অন্তভুক্ত দুঃখ জনক। বাদী হাসিনুর রহমান নিশ্চই কারো প্ররোচনায় এমন ভূল কাজ করেছে। যেহেতু করোনার কারনে আদালত বন্ধ আছে পুলিশ নিশ্চই বাস্তবতার আলোকে দ্বায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করবেন।

১০ নং হরিরামপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি মোঃ মাসুদুর রহমান বলেন, তুচ্ছ ঘটনায় ওদের নিজেদের মধ্যে সংঘর্য হয়েছে আমি বিষয়টি মিমাংসা করার চেষ্টা করেছি কিন্তু বাদী আপসের কথা বলে সময় নিয়ে প্রতারনা মূলক ভাবে মামলা করেছে। এই মামলায় প্রধান শিক্ষককে জড়ানোর কোন যুক্তিকতা নেই, অবশ্যই তার নাম প্রত্যাহার করতে হবে। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ বাকের হোসেন মাষ্টার বলেন, হাবিবুর রহমান শুধু একজন প্রধান শিক্ষক নন তিনি মৌলভীর ডাঙ্গা শাহী জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি তাকে নিয়ে নোংরা মামলা করার কোন যুক্তিকতা নেই।

প্রসঙ্গত : পার্বতীপুর উপজেলার ১০ নং হরিরামপুর ইউনিয়নের খাগড়াবন্দ মৌলভীর ডাঙ্গা মহল্লায় ২৪/০৪/২০২০ইং তারিখে গাছের শিকড় কাটাকে কেন্দ্র করে মৃতঃ রফিকুল ইসলামের ছেলে মোঃ হাসিনুর রহমান ও মোঃ সাইদুল হক পুত্র বধু মোছাঃ লাকি বেগম, মোছাঃ মরিয়ম, মেয়ে মোছাঃ সোহাগি বানু (টুনি), স্ত্রী হাজেরা বেওয়া প্রতিবেশী মৃতঃ জাহাদ আলীর ছেলে মোঃ হানিফ আলীর সঙ্গে বাক যুদ্ধের এক পর্যায়ে তারা সমবেত হয়ে হানিফ আলীর প্রাচীরের দরজায় এসে লাটি সোটা নিয়ে তাকে হামলা চালায়। এসময় হানিফকে বাচাঁতে তার দুই ছেলে মোঃ সাফিকুর ইসলাম ও মোঃ শাকিল হোসেন, স্ত্রী মোছাঃ হাবিবা খাতুন এগিয়ে এলে উভয় পক্ষের মধ্য সংঘর্ষে আহত সাফিকুল, শাকিল, হানিফকে ফুলবাড়ি উপজেলা সাস্থ্য কমপ্লেক্স এ এবং হাসিনুরকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

গনমাধ্যমের প্রতিক্রিয়া : জনপ্রিয় প্রধান শিক্ষক হাবিবুর রহমান এক সময়ের গুনি সাংবাদিক এবং মধ্যপাড়া থানা বাস্তবায়ন কমিটির জনপ্রিয় নেতা। তিনি এলাকায় কতটা জনপ্রিয় তা এলাকার জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিক, শিক্ষানুরাগী, শিক্ষক সহ স্থনীয় জনগন ও কষ্ট পেয়েছে তার বিরুদ্ধে সাজানো মামলা হওয়ায়: তারা প্রতিবাদ জানাচ্ছেও।  অনলাইন গনমাধ্যমের পক্ষে পজিটিভ বিডি নিউজ ২৪ ডটকমের সম্পাদক মোরশেদ মানিক প্রত্যাশা করেছেন সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ সঠিক তদন্তের মাধ্যমে একসময়ের জনপ্রিয় সাংবাদিক বর্তমানে মৌলভীর ডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ হাবিবুর রহমানকে সাজানো মামলা থেকে মুক্ত করবেন, দায়ীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নিবেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*