পায়ে শিকল বাধা অবস্থায় মাদ্রাসা ছাত্রকে ধানক্ষেত থেকে উদ্ধার করলেন বিরামপুরের ওসি মনিরুজ্জামান

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্টাফ রিপোর্টার : দিনাজপুরের বিরামপুরে রক্তাক্ত ও পায়ে শিকল বাধা অবস্থায় মারুফ হাসান (১০) নামক এক মাদ্রাসা ছাত্রকে ধানক্ষেত থেকে উদ্ধার করলেন ওসি মনিরুজ্জামান মনির।  মারুফ হাসান উপজেলার দিওড় ইউপি’র কাদিপুর গ্রামের ত্বালিমউদ্দিন ইসলামীয়া মাদ্রাসার ছাত্র ও পাশ্ববর্তী নবাবগঞ্জ উপজেলার মহারাজপুর গ্রামের মাছুম মিয়ার ছেলে।

এঘটনায় উক্ত মাদ্রাসার মোহতামিম (পরিচালক) লুৎফর রহমান (৩৫) কে আটক করেছেন থানা পুলিশ।

আটককৃত লুৎফর রহমান পাশ্ববর্তী ফুলবাড়ী উপজেলার রুদ্রানী (মন্ডলপাড়া) গ্রামের মৃত সাইফুর রহমানের ছেলে।

বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুজ্জামান মনির বলেন, উপজেলার দিওড় ইউপি’র কাদিপুর গ্রামের ত্বালিমউদ্দিন ইসলামীয়া মাদ্রাসায় শিশু শিক্ষার্থী মারুফ হাসান গত একমাস যাবৎ লেখাপড়া করছেন, লেখাপড়া চলাকালীন মাদ্রাসার মোহতামিম লুৎফর রহমান শিশু শিক্ষার্থী মারুফকে বিভিন্ন ভাবে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতে থাকে। এমতাবস্থায় মঙ্গলবার দুপুরে উক্ত মাদ্রাসার মোহতামিম লুৎফর রহমান তার অফিস কক্ষে শিশু শিক্ষার্থী মারুফ হাসানকে ডাক দিয়ে কক্ষের ভিতর থেকে দরজা বন্ধ করে দিয়ে দুই পা শিকল দ্বারা বেধে তালাবদ্ধ করে দেয় এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারধর করার কারনে শিশুটি নিস্তেজ হয়ে পড়লে তাহাকে রাখিয়া অফিস কক্ষ হইতে বাহিরে চলে যায়। সন্ধ্যার সময় শিশু শিক্ষার্থী মারুফ হাসান কৌশলে মাদ্রাসার অফিস রুম হতে বের হয়ে পার্শ্ববর্তী গ্রাম তৈয়বপুর (চৌধুরী পাড়ায়) ধানক্ষেতের মধ্যে দুই পায়ে শিকল দিয়ে তালাবদ্ধ মুমুর্ষ অবস্থায় পরে থাকে। স্থানীয় জনতা বিষয়টি আমাকে জানালে আমি সঙ্গীয় ফোর্সসহ দ্রুত সেখান থেকে শিশুটিকে কর্দমাক্ত দুই পায়ে শিকল দিয়ে তালাবদ্ধ মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে মেকারের সহায়তায় শিকল খুলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাৎক্ষনিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করি এবং শিশুটির পিতামাতাকে খবর দেই।

তিনি আরো জানান, শিশুটির পিতা মাছুম মিয়া বাদী হয়ে ২০১৩ সালের শিশু নির্যাতন আইনে থানায় মামলা দায়ের করলে আটককৃত আসামী লুৎফর রহমানকে বুধবার দিনাজপুর জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*