ফ্রান্সে ফের বিতর্ক, বিপরীত লিঙ্গের ডাক্তারের কাছে সেবা না নিলে শাস্তির বিধান!

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পজিটিভ বিডি নিউজ ২৪ ডটকম: ‘ইসলামপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদী’ মোকাবিলায় ফ্রান্সে কঠোর আইন আনছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাকরন। প্রস্তাবিত এই আইন নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। সেখানে বিপরীত লিঙ্গের ডাক্তারের কাছ থেকে সেবা নিতে অস্বীকৃতি জানালে জেল-জরিমানার বিধান রাখা হচ্ছে বলে জানান দেশটির এক মন্ত্রী।

পার্লামেন্টে উঠতে যাওয়া এই বিলের কিছু প্রস্তাব সম্পর্কে জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট নিজেই। যেমন, মসজিদগুলোতে কীভাবে অর্থ আসছে, তা দেখা হবে। ধর্মীয় সংগঠন ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর পুঙ্খানুপুঙ্খ যাচাইয়ের মধ্য দিয়ে যেতে হবে।

ম্যাকরনের প্রস্তাব নিয়ে আলোচনার মাঝে বিতর্কের ঝড় তুলেছেন ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরাল্ড দারমানিন। তিনি একটি সংবাদপত্রকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ফ্রান্স এখন চরমপন্থী মুসলিমদের বিরুদ্ধে লড়াই শুরু করেছে।

প্রস্তাবিত বিল নিয়ে তার বক্তব্য, কোনও পুরুষ যদি চিকিৎসকের কাছে যান এবং বলেন নারী ডাক্তারের কাছে তিনি চিকিৎসা করাবেন না, তা হলে পাঁচ বছরের জেল ও ৭৫ হাজার ইউরো জরিমানা হবে। একই নিয়ম প্রযোজ্য হবে নারীদের ক্ষেত্রেও।

কোনও সরকারি কর্মকর্তার ওপর চাপ সৃষ্টি করলে বা কোনও শিক্ষকের কাছে পড়তে না চাইলেও শাস্তি হবে।

এরপরই সামাজিক মাধ্যমে শুরু হয় সমালোচনার ঝড়। বিশেষ করে চিকিৎসক বা নার্সের কাছে চিকিৎসা নিতে অস্বীকার করলে জেলে যেতে হবে, বিপুল ক্ষতিপূরণ দিতে হবে, এই ব্যবস্থার সমালোচনায় মুখর হন বিশিষ্টজন ও সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীদের অনেকেই।

জানা গেছে, এই বিল আনা হবে ডিসেম্বরে। ১৯০৫ সালে রাষ্ট্র থেকে চার্চকে আলাদা করতে আইন আনা হয়েছিল। সেই আইনকেই সংশোধন করে নতুন ব্যবস্থাগুলো যুক্ত করা হবে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*