বিরামপুরে গৃহবধূকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত ধর্ষক আটক ! আইনের দৃষ্টিতে দায়ী ভিকটিমও

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্টাফ রিপোর্টার : বিরামপুরে এক গৃহবধূকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষনের অভিযোগে মামলায় বিরামপুর থানা পুলিশ অভিযুক্ত ধর্ষক বেলাল হোসেন রুবেল(৩০)কে আটক করেছেন । বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুজ্জান নিশ্চিত করেছেন ভিকটিমের  স্বামী ও সন্তান রয়েছে, তালাকপ্রাপ্ত নন।  স্বামী থাকাবস্থায় বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক মিলনসহ সবকিছুই আইনত: এবং ধর্মীয় মতে অপরাধ “ভিকটিম ও অভিযুক্ত” দুজনের, মন্তব্য আইনবিদ (প্রবি:) মোরশেদ মানিকের। তিনি জনবান্ধব পুলিশিং কার্যক্রম সুদৃঢ় করতে ভিকটিম স্বামী-সন্তান থাকার পরও বিবাহের প্ররোচনায় অপরাধে জড়িত হওয়ায় তাকেও আইনের আওতায় নেয়ার আহবান জানিয়েছেন পুলিশ বাহিনীর প্রতি। দুষ্টের দমন করতে ভিকটিমকেও আইনের আওতায় না নিলে অসামাজিক কর্মকান্ড উৎসাহিত হবে।

আইনবিদ (প্রবি:) মোরশেদ মানিকের মতে ধর্ষক এবং ধর্ষিতা উভয়েই অপরাধি। কারন আইনত: এবং ধর্মীয় মতে একজন গৃহবধূ  তার স্বামীর সাথে বিচ্ছেদের পর ইদ্দত পালন শেষে অন্য কোন পুরুষের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে পারেন, এর ব্যতয় ঘটার কোন সুযোগ নেই। তাই সংঘটিত  অপরাধটি কোন অবস্থাতেই ধর্ষণ হিসেবে অভিহিত করার সুযোগ নেই, কারন অপরাধ সংঘটিত হয়েছে ভিকটিম ও আসামীর সম্মতিতেই । এ বিষয়টি সন্দেহাতীত ভাবেই অসামাজিক কর্মকান্ডমূক অপরাধ । এমনকি কোন গৃহবধূ একজনের সাথে বিচ্ছেদ না করে ভবিষত বিবাহ সম্পাদনের আশায় যা কিছু করবেন , সবই অপরাধমূক কান্ড। সমাজকে কলংকমুক্ত করতে দুজনকেই আইনের আওতায় নেয়ার তাগিদ দেন সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ ও বিরামপুর উপজেলার কাটলা ইউনিয়নের শৈলান গ্রামের জনগনের প্রতি।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার কাটলা ইউনিয়নের শৈলান গ্রামের মৃতঃ হবিবর রহমানের পুত্র বেলাল হোসেন রুবেল(৩০) একই গ্রামের আশরাফুলের স্ত্রী মিতু আক্তার (২৫) এর সাথে এক বছর যাবৎ  বিয়ের প্রলোভনে সখ্যতা তৈরী করে । এরই এক পর্যায়ে বেলাল ১৪ ই নভেম্বর দুপুর আনুমানিক ২টার দিকে  মিথ্যা অযুহাতে বাড়ীতে ডেকে নেয় এবং তাঁর ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে।  আত্মরক্ষায় চিৎকার করলেও তার বাড়ীর লোকজন সহযোগিতা না করে বরং তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাড়িয়ে দেয় ।এ অবস্থায়  মিতু ধর্ষকের বিরুদ্ধে থানায় এজাহার দাখিল করে ।

এবিষয়ে থানার ওসি মনিরুজ্জান জানান বাদীনির  এজাহার প্রাপ্তি সাপেক্ষে ১৫ নভেম্বর/২০২০  রবিবার  ২০০০সালের নারী শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী ২০০৩ এর ৮(১) ধারায় ধর্ষণ মামলা রুজু করি।  যার মামলা নং ১৬ এবং  অভিযুক্ত ধর্ষক বেলাল হোসেন ওরফে রুবেল কে আটক করি ।তিনি আরো জানান মামলাটি তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী আইনগত ব্যাবস্হা গ্রহন করা হবে ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*