বীরগঞ্জে কলেজ ছাত্রীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর দিয়ে ২০ লক্ষ টাকা গ্রহণ: চাকুরী পাওয়ার পর অন্যত্র বিয়ে ; আদালতে মামলা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোঃ আফজাল হোসেন , দিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার নিজপাড়া ইউনিয়নের নিজপাড়া (সরদারপাড়া) গ্রামের মোঃ খোশবুল আলমের ছেলে মোঃ আকতারুল ইসলাম চাকুরীতে টাকার প্রয়োজনে বীরগঞ্জ পৌর শহরের মোঃ ইসমাইল হোসেনের মেয়ে মোছাঃ জেরিন কে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে গত ২৪/০১/২০১৮ইং তারিখে একশত টাকার তিনটি নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর দিয়ে ২০ লক্ষ টাকা গ্রহণ করে এবং প্রতিশ্রুতি দেয় যে, মৌলিক প্রশিক্ষণ শেষে বিয়ে ও কাবিন নামা সম্পন্ন করিবে। ট্রেনিং চলাকালীন ২০১৮ইং সালে ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ছুটিতে নিজ বাড়ীতে আসিলে ঈদের দিন আকতারুল ইসলাম ও তার বোন বানু বেগম এবং ভগ্নিপতি ফারুক হোসেন আমার বাড়ীতে এসে ঈদের দাওয়াত পালন করে। বিকাল অনুমান ৫ টার সময় আকতারুল ইসলাম ও তার বোন বানু বেগম এবং ভগ্নিপতি ফারুক হোসেন বেড়ানোর কথা বলিয়া মেয়েকে নিয়ে যায় এবং রাত অনুমান ৭.০০ ঘটিকার সময় আকতারুল ইসলাম তার বোনের বাড়ীতে বোন ও ভগ্নিপতির সহায়তায় তাদের শয়ন ঘরে ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ভুল বুঝাইয়া ধর্ষন করে। রাত অনুমান ৯ টায় আবার বাড়ীতে রাখিয়া যায়। জেরিন এই বিষয়টি তার পিতা মাতাকে জানাইলে তার পিতা ও বোন এই বিষয়ে প্রতিবাদ করিলে তারা বিষয়টি গোপন রাখার জন্য অনুরোধ করে। এবং ঈদের পরের দিন আকতারুল ইসলাম ও তার পরিবারবর্গ আমাদের বাড়ীতে আসিয়া আংটি পড়িয়া এঙ্গেসম্যান্ট সম্পন্ন করে। ট্রেনিং শেষে রংপুর জেলায় যোগদান করিয়া বিভিন্ন সময় ছুটিতে আসিয়া জেরিন কে ভুল বুঝাইয়া তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক একাধিক বার ধর্ষন করে। বিয়ে না করে বিভিন্ন ধরনের তালবাহানা শুরু করে। বর্তমানে রংপুর জেলার বদরগঞ্জ থানায় এস আই পদে কর্মরত আছেন। গত ২৭/১১/২০২০ইং তারিখে পারিবারিক ভাবে বিয়ে সম্পূর্ণ করার প্রতিশ্রæতি দিয়েও বিয়ে করতে আসেনি। বিয়ে করতে না আসায় জেরিনের পিতা সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপুন্ন হন। পরবর্তীতে জেরিনের পিতা জানতে পারেন এস আই মোঃ আকতারুল ইসলাম বীরগঞ্জ পৌর শহরের কলেজ পাড়ার মোঃ শাহজাহান আলীর মেয়ে মোছাঃ শাহনাজ পারভীনকে গত ০৬/০২/২০২০ইং তারিখে নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর কাজী অফিসে বিয়ে সম্পন্ন করেন। বিষয়টি গোপন রেখে প্রতারণার আশ্রয় গ্রহণ করেন এবং জেরিনের পিতাকে মোবাইল ফোনে বিভিন্ন ধরনের হুমকি প্রদর্শন করতে থাকেন। মামলা সুত্রে জানা যায়, জেরিন নিরুপায় হয়ে দিনাজপুর বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন। যাহার মামলা নং- ৮৭৬/২০, তাং-০৮/১২/২০২০ইং বর্তমানে বাদী ও তার পরিবার নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছেন। । এব্যাপারে এস আই মোঃ আকতারুল ইসলামের সঙ্গে কথা বললে তিনি বলেন তাদের কাছে আমি কোন টাকা নেইনি। তবে তার সঙ্গে আমার বিয়ের কথা বার্তা হচ্ছিল। এ ব্যাপারে বাদী উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশুহস্তক্ষেপ সহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জোর দাবি জানিয়েছেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*