ভাস্কর্য একটি জাতির ইতিহাস ও ঐতিহ্যের অন্যতম স্মারক :দিনাজপুর যুব মহিলা লীগ

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জিন্নাত হোসেন, দিনাজপুর থেকে :  জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য বিরোধী ও ধর্মীয় উম্মাদনা সৃষ্টিকারী উগ্র সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে অবিলম্বে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগ দিনাজপুর জেলা শাখা মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে।
৩ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার দিনাজপুর প্রেসক্লাব সম্মুখ সড়কে বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগ দিনাজপুর জেলা শাখা আয়োজিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য বিরোধী ও ধর্মীয় উম্মাদনা সৃষ্টিকারী উগ্র সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে অবিলম্বে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচীতে জেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি ছবি সিনহা’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাসুদা বেগম মুক্তার সঞ্চালনায় বক্তারা বলেন, বাঙালির ইতিহাসের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ঘটনা একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ এবং শ্রেষ্ঠ অর্জন বাংলাদেশের স্বাধীনতা। আর এ স্বাধীনতার মহানায়ক হলেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।
স্বাধীন বাংলাদেশে দাঁড়িয়ে পাকিস্তানী প্রেতাত্মাদের রাষ্ট্রের স্থপতিকে হেয়-অপমান করার এ ধরনের দুঃসাহসে স্তম্ভিত সবাই। এ শুধু বঙ্গবন্ধুকে নয় বাংলাদেশকে অস্বীকার করা। বাঙালি জাতিসত্তা এবং হাজার বছরের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে ধুলায় মিশিয়ে দেওয়ার অপচেষ্টা।
আমরা সবাই জানি ভাস্কর্য একটি জাতির ইতিহাস ও ঐতিহ্যের অন্যতম স্মারক। হাজার বছরের লড়াই-সংগ্রামের বীরত্বগাঁথা এবং শ্রেষ্ঠ মনীষীদের অবদানকে নতুন প্রজন্মের পরম্পরায় জীবন্ত করে রাখা। এই ভাস্কর্য নির্মাণের সঙ্গে ধর্মের কোনো সম্পর্ক বা বিরোধ নেই। হাজার বছরের মুসলিম সভ্যতার দিকে যদি আমরা তাকাই তাহলে দেখব বিশ্বের অনেক ইসলামি দেশগুলোতে সংস্কৃতির নানা উপস্থাপনের মধ্যে ভাস্কর্য অন্যতম প্রধান হিসেবে স্থান করে আছে। ধর্মের অপব্যখ্যা দিয়ে যারা ভাস্কর্যকে ইসলামবিরোধী বলে সাধারণ ধর্মপ্রাণ মানুষকে বিভ্রান্ত করছেন-তারা কি অপরাপর ইসলামিক দেশগুলোর দিকে একবার তাকিয়ে দেখেছেন?
বক্তারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য বিরোধী ও ধর্মীয় উম্মাদনা সৃষ্টিকারী উগ্র সাম্প্রদায়িক অপশক্তি পাকিস্তানী প্রেতাত্মাদের বিরুদ্ধে অবিলম্বে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।
মানববন্ধন কর্মসূচীতে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা যুব মহিলা লীগের সহ-সভাপতি আন্না অধিকারী, সাংগঠনিক সম্পাদক তাজমুন নাহার ছন্দা, শহর যুব মহিলা লীগের আহবায়ক মলিভিয়া পারলিন, যুগ্ম আহবায়ক তিথি দে, সদর উপজেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি সাবিনা ইয়াসমিন, সাধারণ সম্পাদক রিনা রায়, যুব মহিলা লীগ নেত্রী সিলিভিয়া পারলিন, মমতাজ পারভীন লিপি, বৃষ্টি বসাক, জাকিয়া সুলতানা চন্দন, গৌরী সেন, ময়না, সুমী, রিনা, মনি, মনিকা, মিনা, ববি, ঝুনু পমুখ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*