মুকুলে মুকুলে ছেয়ে গেছে বিরামপুর উপজেলা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আব্দুর রাজ্জাক, বিশেষ প্রতিনিধি- বইছে ফাগুনের হাওয়া, সঙ্গে যোগ হয়েছে লিচু ও আমের মুকুলের মৌ মৌ গন্ধ । যেমন তার সৌন্দর্য, তেমনি ঘ্রাণ ছড়াচ্ছে ফলমূলে প্রসিদ্ধ ও খাদ্য শষ্যের ভান্ডার খ্যাত ঐতিহ্যবাহী দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার সর্বত্র জুড়ে। মুকুলভরা ডালে কচি পাতার স্পর্শ। মৌ মৌ ঘ্রাণে মৌমাছির দল। গুণ গুণ সুরে বসে চলেছে ছন্দের নাঁচন।

আহ ! এ যেন পাকা ফলের মধুমাস জৈষ্ঠ্যের আগমনী বার্তা।

বিরামপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নিকছন চন্দ্র পাল বলেন, ” অত্র উপজেলায় ১০০ হেক্টর জুড়ে ছোট বড় ২৮০ টি বাগানে লিচু এবং আম ১০৪ হেক্টর জুড়ে ছোট বড় ৩২০ টি বাগানে এবার চাষাবাদ হচ্ছে। প্রাকৃতিক দূর্যোগ না ঘটলে আম, লিচু ও অন্যান্য ফলমূলে এবারে বাম্পার ফলন হবে বলে আমরা আশা করছি। মুকুলের সময় পানি সেচ দেয়া থেকে বিরত থাকতে এবং গুটি আসার পর সেচ দিতে সবাইকে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। পোকামাকড় থেকে রক্ষার জন্য বর্তমানে ফেরোমন ফাঁদ খুব ভালো কার্যকরী বলে মত জানান কৃষি কর্মকর্তা নিকছন চন্দ্র পাল।

তিনি আরও বলেন, উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে আম, লিচু বাগান চাষীদের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

শিমুলতলীর বাগান মালিক সৈয়দ আনিসুর রহমান নাল্টু পজিটিভ বিডি নিউজ ২৪ ডটকম এর বিশেষ প্রতিনিধি কে বলেন, আমার ৩৬ বিঘার বাগানে ল্যাংড়া, মিশরিভোগ, গোপালভোগ, হাড়িভাঙ্গা, লখনা, অম্রপালি জাতের আম চাষ করছি এবং হাড়িয়া মাদ্রাজি, বোম্বাই, বেদেনা, চায়না-৩ জাতের লিচু চাষ করছি।

তিনি আরও জানান, এই অঞ্চলের অনেকেই এখন আম লিচু চাষ করে আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী ও সংসারে স্বচ্ছলতা এনেছেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*