ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের মৌসুম শুরু হার দিয়ে

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পজিটিভ বিডি নিউজ ২৪ ডটকম (খেলাধুলা ডেস্ক) : মৌসুমের প্রথম ম্যাচটা দেখতে বড় সাধ করে মাঠে এসেছিলেন স্যার অ্যালেক্স। ব্যক্তিগত ও পেশাদার জীবনে প্রচণ্ড সফল কারোর সন্তান উচ্ছন্নে গেলে চেহারায় যেমন একটা বেদনার ছাপ ফুটে ওঠে, মাস্কের পেছনে ফার্গুসনের চেহারাতেও হয়তো সেই বেদনা ফুটে উঠেছিল গত রাতে! হাজারও ত্যাগ-তিতিক্ষা দিয়ে বছরের পর বছর ধরে তিল তিল করে গড়ে তোলা ক্লাবের এমন দশা যে তিনি কখনই চান না !

গত মৌসুমের শেষটা বেশ আশাব্যঞ্জক ছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের জন্য। লেস্টার সিটিকে হারিয়ে এই মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগে জায়গা করে নিয়েছিল তাঁরা। আশাবাদী ইউনাইটেড সমর্থকদের মনে হতেই পারে, উন্নতির হয়তো শুরু ছিল সেটা, স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসন যাওয়ার পর থেকে যে উন্নতির ধারাটা কখনই নিয়মিত হয়নি। কিন্তু সে আশায় গুড়ে বালি। নতুন মৌসুমের প্রথম ম্যাচে আবারও সেই সাধারণ মানের ইউনাইটেডকেই দেখল সমর্থকেরা। নিজেদের মাঠে ক্রিস্টাল প্যালেসের মতো দলের কাছে ৩-১ গোলে হেরে বসেছে তাঁরা। ২০২০-২১ মৌসুম শুরু হলো তাই তিক্ততা দিয়ে।

এর আগে প্যালেসের বিপক্ষে ২২ বার লিগ ম্যাচ খেলে মাত্র একবার হেরেছিল ইউনাইটেড। লিগে নিজেদের উদ্বোধনী ম্যাচেও সবচেয়ে বেশিবার জেতার রেকর্ড ছিল তাদের, ১৯ বার। কিন্তু ইউনাইটেডের এসব রেকর্ড সমৃদ্ধ হয়নি ম্যাচ শেষে।

ইউনাইটেডের হয়ে মূল একাদশে ইংলিশ রাইটব্যাক অ্যারন ওয়ান-বিসাকা বা উইঙ্গার মেসন গ্রিনউডের কেউই খেলেননি। ওয়ান-বিসাকার অভাবটা টের পেয়েছে ম্যাচের সাত মিনিটের মধ্যেই। ইউনাইটেডের ডান প্রান্ত থেকে প্যালেসের লেফট মিডফিল্ডার জেফ্রি শ্লাপকে আটকাতে পারেননি সেন্টারব্যাক ভিক্টর লিন্ডেলফ। দুরন্ত গতির মাটি ঘেঁষা ক্রসটা আটকানোর সাধ্য ছিল না আরেক সেন্টারব্যাক হ্যারি ম্যাগুয়ার কিংবা লেফটব্যাক লুক শ’রও। সুন্দর একটা ট্যাপ ইনে প্যালেসকে এগিয়ে দেন টটেনহামের সাবেক উইঙ্গার আন্দ্রোস টাউনসেন্ড। প্রথমার্ধে আর কোনো গোল হয়নি। তবে ইউনাইটেড যে গোল করার চেষ্টা করেনি, তা কিন্তু নয়। ২২ মিনিটে মিডফিল্ডার পল পগবার শট জাল ‍খুঁজে পায়নি। এরপর স্কট ম্যাকটমিনের প্রচেষ্টা, ব্রুনো ফার্নান্দেসের কর্নারে হ্যারি মাগুয়ারের হেড সমতায় ফেরাতে পারেনি ইউনাইটেডকে।

দ্বিতীয়ার্ধে নতুন উদ্যমে ইউনাইটেডকে চেপে ধরে প্যালেস। ৬৬ মিনিটে ঘানার স্ট্রাইকার জর্ডান আইয়ুর পাস থেকে আইভোরি কোস্টের উইলফ্রিয়েড জাহার গোল বাতিল হয়ে যায় অফসাইডের কারণে। তাও আশা হারায়নি প্যালেস। আইয়ুর শট লিন্ডেলফের হাতে লাগলে পেনাল্টি দেন রেফারি। আইয়ুর দুর্বল শট আটকে দেন গোলরক্ষক ডেভিড ডা হেয়া। তবে ভিএআরের কল্যাণে দেখা যায়, পেনাল্টির সময় গোললাইনের ছেড়ে এগিয়ে এসেছিলেন ডা হেয়া, যা অনৈতিক। ফলে আবারও প্যালেসকে আবারও পেনাল্টি নেওয়ার নির্দেশ দেন রেফারি। সেখান থেকে গোল করতে ভুল করেননি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক উইঙ্গার জাহা।

এই ম্যাচে প্রথমবারের মতো নেমেছিলেন আয়াক্স থেকে ইউনাইটেডে আসা ডাচ মিডফিল্ডার ডনি ফন ডে বিক, বদলি হিসেবে। নিজের অভিষেকটা গোল করে রাঙিয়েছেন তিনি, ৮০ মিনিটে ডান পায়ের দুর্দান্ত এক শটে ব্যবধান কমান। তখন কিছুক্ষণের জন্য মনে হচ্ছিল, রোমাঞ্চকর এক ফিরে আসার কাব্যই হয়তো লিখবে ইউনাইটেড, বছরের পর বছর ধরে যে কাজটা করে সিদ্ধহস্ত তাঁরা। কিন্তু সেটা হয়নি। উল্টো পাঁচ মিনিট পর লিন্ডেলফের বাধা এড়িয়ে একটু এগিয়ে ডান পায়ের বুদ্ধিদীপ্ত শটে স্কোরলাইন ৩-১ করেন জাহা। তাতেই নিশ্চিত হয়ে যায় ইউনাইটেডের হার।

দিনের আরেক ম্যাচে মার্সেলো বিয়েলসার লিডস ৪-৩ গোলে হারিয়েছে ফুলহামকে। লিডসের হয়ে জোড়া গোল করেছেন পর্তুগিজ উইঙ্গার হেলদের কস্তা। বাকি গোল দুটি ইংলিশ স্ট্রাইকার প্যাট্রিক ব্যামফোর্ড ও পোলিশ মিডফিল্ডার ম্যাথিউশ ক্লিচের। ফুলহামের হয়ে জোড়া গোল সার্বিয়ান স্ট্রাইকার আলেক্সান্দার মিত্রোভিচের, পাশাপাশি গোল পেয়েছেন আরেক স্ট্রাইকার ববি রিড।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*