রাজধানীতে এডিসের লার্ভা পাওয়ায় ৩ লাখ ২৯ হাজার টাকা জরিমানা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পজিটিভ বিডি নিউজ ২৪ ডট কম (ঢাকা): ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত ভবনে ডেঙ্গুর বাহক এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ১২টি মামলা দায়ের ও ৩ লাখ ২৯ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ।
এরমধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন-ডিএনসিসি এলাকায় এডিস মশা, ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া বিস্তার রোধকল্পে পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালতে ১টি মামলায় ১ লাখ ৬৬ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। আর ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ১১ নির্মাণাধীন ভবন ও বাসা-বাড়িকে ১ লাখ ৬৩ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
ডিএনসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা আবুল বাসার মো. তাজুল ইসলাম জানান, এই সিটির ২ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ. এস. এম. সফিউল আজম পরিচালিত মোবাইল কোর্টে ১টি মামলায় ৬৬ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।
এসময় মাইকিং করে জনসচেতনতামূলক বার্তা প্রচার করা হয় এবং সকলকে এডিস মশা এবং ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে ডিএনসিসি মেয়রের আহবান “তিন দিনে এক দিন, জমা পানি ফেলে দিন” মানার পাশাপাশি ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকারি নির্দেশনাসহ স্বাস্থ্যবিধিসমূহ যথাযথভাবে মেনে চলার পরামর্শ দেয়া হয়।
এদিকে ডিএনসিসি’র জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবু নাছের জানান, আজ দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৭ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ২ জন আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা (আনিক) অভিযানে এই জরিমানা আদায় করা হয়।
দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের মধ্যে অঞ্চল-১ এর ধানমন্ডি ও বাংলামোটরে মাহফুজুল আলম মাসুম, অঞ্চল-২ এর এজিবি কলোনি ও ওয়াসা কলোনিতে মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন,  অঞ্চল-৩ এর কামরাঙ্গীরচরের মাতবর বাজারে তৌহিদুজ্জামান পাভেল, অঞ্চল-৫ এর উত্তর ও পশ্চিম যাত্রাবাড়িতে মুহাম্মদ হাসনাত মোর্শেদ ভূঁইয়া এবং জুরাইনের আলমবাগে শাহিন রেজা, অঞ্চল-৮ এর ডেমরার বাউনিয়া জুট মিল ও ডেমরা মহিলা কলেজে কাজী হাফিজুল আমিন এবং অঞ্চল-১০ এর শেখদী, শনির আখড়া গোবিন্দপুর এলাকায় বিকাশ বিশ্বাস এসব অভিযান পরিচালনা করেন।
এছাড়াও আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তাদের (আনিক) মধ্যে অঞ্চল-১ এর মেরীনা নাজনীন ধানমন্ডি, হাতিরপুল, সোনারগাঁও ও কলাবাগানে এবং অঞ্চল-৩ এর আনিক বাবর আলী মীর আজিমপুর এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।
ভ্রাম্যমাণ আদালতসমূহ এ সময় মোট ১ হাজার ১১৮টি নির্মাণাধীন ভবন, বাসাবাড়ি ও প্রতিষ্ঠানে অভিযান পরিচালনা করেন এবং মশার লার্ভা পাওয়ায় ১১টি নির্মাণাধীন ভবন, বাসা-বাড়ি ও প্রতিষ্ঠানকে ১১টি মামলায় সর্বমোট ১ লাখ ৬৩ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।
এছাড়াও অভিযানকালে আরও ১২টি স্থাপনা ও বাসা-বাড়িতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় তা ধ্বংস করা হয় এবং সেসব বাড়ির মালিককে সতর্ক করা হয়।
এডিসের লার্ভা বিরোধী অভিযানের পাশাপাশি কর্পোরেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ডে জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা অব্যাহত রয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*