হিলিতে করোনাতেও স্বপ্ন দেখছে কৃষক বোরো ধানের ক্ষেতে

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোসলেম উদ্দিন, বিশেষ প্রতিনিধি :  করোনার প্রাদুর্ভাবে গোটা বিশ্বসহ আতঙ্কিত বাংলাদেশ। লকডাউনে ঘরবন্দি মানুষ। প্রয়োজন ছাড়া বের হতে পারবে না কেউ। বন্দিজীবনে সবার জমানো অর্থ আর খাদ্য খেয়ে প্রায় শেষের দিকে। কিন্তু দিনাজপুরের বোরো চাষীরা ঘর থেকে বের হয়ে স্বপ্ন দেখছে মাঠে ফলানো সেই বোরো ধানের ক্ষেতে। পুরো জেলার মাঠে মাঠে সবুজের সমাহার। ধানের প্রতিটি গাছের মুখে বের হয়েছে শীষ। ধান ক্ষেতের মাঝে স্বপ্ন দেখছে বোরো চাষীরা।

জেলার হাকিমপুর (হিলি) উপজেলার জালালপুর গ্রামের ধানচাষী আকরাম হোসেন বলেন, দেশত তো করোনা আয়ছে। বায়ীত্তে (বাড়ি থেকে) বের হওয়া যাউছে না। এবার মুই তিন বিঘা জমিতে ইরি ধান লাগায়ছু। মাঠত ধান ভাল হইছে। ধান দেখে মোর মনটা জুড়ে যাউছে। বায়ীত (বাড়িতে) যা খাবার ছিলো তা প্রায় শেষ হচে। কেচু (কিছু) দিনের মধ্যে ধান কাটবা নাাগবে (লাগবে)। ঘরত (ঘরে) ধান উঠলে মোর আর কোন চিন্তা নাই।

দিনাজপুর জেলা কৃষি অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক তৌহিদুল ইকবাল জানায়,চলতি মৌসুমে জেলার ১৩ টি উপজেলায় প্রায় ১ লাখ ৭১ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো ধান উৎপাদনের লক্ষমাত্রা ধারা হয়েছে। এর মধ্যে হাইব্রিড, উফসী জাতের ধান চাষ করা হয়েছে।
তিনি আরও জানান, বোরো চাষীরা যাতে ভাল ফলন ঘরে তুলতে পারে সে জন্য জেলার প্রতিটি উপজেলার কৃষি কর্মকর্তারা নানা পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন। আশা করছি আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে ধান কাটা মাড়ায় শুরু হবে।

এদিকে হাকিমপুর (হিলি) উপজেলা কৃষি অফিসার শামীমা নাজনীন জানায়, এবছরে চলতি মৌসুমে উপজেলায় প্রায় ৭৩২৫ হেক্টর জমিতে বোরো ধান উৎপাদনের লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছে। আমরা প্রতিনয়িত মাঠে কৃষকদের পাশে থেকে সুপরামর্শ দিয়ে আসছি। প্রাকৃতিক কোন দৃর্যোগ না হলে এবারে বোরো চাষীরা ভাল ফলন ঘরে তুলতে পারবে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*