হিলিতে ত্রান চাইতে গিয়ে নির্যাতনের শিকার সুজন

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোসলেম উদ্দিন, বিশেষ প্রতিনিধি : করোনা মোকাবিলায় মানুষ আজ ঘরবন্দি। সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানসহ ব্যবসা-বাণিজ্য,যানবহন চলাচল বন্ধ। কর্মহীন হয়ে পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষ। ছেলে-মেয়েদের মুখে একমুঠো খাবার তুলে দেওয়ার জন্য ত্রানেরর পিছোনে ছুটে বেরাচ্ছে হতদরিদ্র পিতা-মাতারা। আবার ত্রান নিতে গিয়ে নির্যাতনেরর শিকার হতে হচ্ছে অনেকেই। এমনি ঘটনা ঘটেছে দিনাজপুরের হিলির মাঠপাড়া গ্রামে।

আজ মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) বেলা ১১ টায় মাঠপাড়া শাপলা যুবসংঘ ক্লাবে ত্রান নিতে গিয়ে ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আরিফের হাতে নির্যাতনেরর শিকার হয় স্থানীয় কর্মহীন অসহায় সুজন।

অসহায় সুজন  বলেন, আমি গরীব মানুষ, গাড়িতে কাজ করে সংসার চালায়। করোনা কারনে গাড়ি-ঘোড়া বন্ধ রয়েছে। ১৩ থেকে ১৫ দিন আগে ৪ কেজি চাল পেয়েছিলাম। ক’দিনে তা শেষ হয়ে গেছে। তারপর থেকে ছেলে-মেয়েদের মুখে ঠিকমতো খাবার তুলে দিতে পারছি না। দুই-তিন থেকে আখায় (চুলায়) হাড়ি উঠেনি। নিরুপায় হয়ে আজ সকালে শুনলাম ক্লাবে ত্রান বিতরণ করছে। বাচ্চাদের মুখে একটু খাবার দিতে পারবো বলে ছুটে গেলাম ত্রানের আশায়। ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আরিফ ভাইয়ের নিকট অনেক কাকুতি – মিনতিপূর্বক বাচ্চাদের জন্য  কয়েক কেজি চাল চাইলাম।  চাল তো দিলোই না, না দিয়ে সে ক্লাব থেকে বের করে দিলো। আমি সহ্য না করতে পেরে তার উপর রাগান্বিত হলাম। তখন আরিফ আমাকে কিল-ঘুষি মারতে শুরু করলো এবং ক্লাবে আটকে রাখলো।

সুজনের দুঃখুনী মা বৃদ্ধা মনোয়ারা  কান্না জড়িত কন্ঠে বলল, আমরা গরীব, আমাদের কেউ নাই। আমার ছেলে অনেক দিন যাবৎ ঘরে বসে আছে, কোন কাজ নেই। আমাদের কেউ সাহায্য করছে না। সবাই খাদ্যসামগ্রী পাচ্ছে।সেখানে খাবার চাওয়াতে ছেলেটাকে মারধর করলো, এর কি কোন বিচার হবে না?

সুজনকে কেন মারা হয়েছে এবিষয়ে শাপলা যুবসংঘ ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আরিফের নিটক জানতে চাইলে সে রাগান্বিত হয়ে বলেন, তাকে মেরেছি এটা আমাদের পারিবারিক বিষয়। এতে আপনাদের (সাংবাদিক) কি হয়েছে?

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*