হিলিতে পরিবার-পরিকল্পনার কার্যক্রম শতভাগ সফল হয়নি

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোসলেম উদ্দিন, বিশেষ প্রতিনিধি : দিনাজপুরের হাকিমপুর (হিলি) উপজেলায় পরিবার-পরিকল্পনার কার্যক্রম শতভাগ সফল হয়নি। আবার কাঠি দ্বারা জন্ম নিয়ন্ত্রণে বন্ধ্যাত্বকরণের ১৭৩ টাকা দেওয়া হয় না- এমন অভিযোগ ভুক্তোভোগীদের।

অনুসন্ধানে জানা যায়, হাকিমপুর (হিলি) উপজেলার তিনটি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় মোট ২১ হাজার ৪’শ ৪৭ জনের মাঝে জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতির সেবা দিয়ে আসছে পরিবার-পরিকল্পনা বিভাগ। পিল সেবন করছেন ১৭ হাজার ৬’শ ৬৮ জন নারী, কনডম ব্যবহার করছেন ১৮’শ ৯৭ জন পুরুষ। ইন্জেকশন দ্বারা জন্ম নিয়ন্ত্রণ করছেন ২ হাজার ৩১ জন নারী। স্থায়ী বন্ধ্যাত্বকরণ করেছেন পুরুষ ১৯’শ ৬৪ জন, নারী ১২’শ ৪৬ জন। কাঠি দ্বারা জন্ম নিয়ন্ত্রণ বন্ধত্ব করেছেন ১২’শ ৯১ জন।
অপারেশনের মাধ্যমে স্থায়ী বন্ধ্যাত্বকরণে পুরুষ ও নারীকে দেওয়া হচ্ছে ২৩০০ টাকা। আবার নারীদের কাঠি দ্বারা বন্ধ্যাত্বকরণে তাদের দেওয়া হচ্ছে ১৭৩ টাকা। তবে অভিযোগ আছে, কাঠি দ্বারা বন্ধত্বকরণে অনেক নারীকে এই টাকা দেওয়া হচ্ছে না।

কথা হয় উপজেলার জালালপুর গ্রামের শ্রীমতি রত্না দাসের সাথে, তিনি বলেন, অনেক আগে আমি কাঠি দ্বারা জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি গ্রহন করেছি, কিন্তু আমি কোন টাকা পাইনি।

হাকিমপুর উপজেলা পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা মামুনুর রশিদ বলেন, আমরা শতভাগ পরিবার-পরিকল্পনার কার্যক্রম সফল করতে পারিনি, তবে ৮০% সফল হতে পেরেছি। কাঠি দ্বারা বন্ধ্যাত্বকরণের টাকা কেন দেওয়া হয় না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা প্রত্যেকেই টাকা দিয়ে আসছি।
তিনি আরও বলেন, আমাদের জনবল সংকট রয়েছে। যেখানে ৪৯ জন স্টাফ থাকার কথা সেখানে মাত্র ২৯ জন রয়েছে। বাঁকি ২০ জন কর্মী না থাকার কারণে আমাদের কার্যক্রম শতভাগ সফল করতে পারছি না।

এবিষয়ে হাকিমপুর (হিলি) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ তৌহিদ আল হাসান জানান, শতভাগ কার্যক্রম সফল হয়নি এবং কাঠি দ্বারা বন্ধ্যাত্ব করণের টাকা দেওয়া হয় না, বিষয়টি অবগত ছিলাম না। আপনার মাধ্যমে জানলাম ,বিষয়টি নিয়ে ওই কর্মকর্তার সাথে আলোচনা করবো।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*